যৌতুকের বলি হলেন জামালপুরের রাফিয়া।

জামালপুর নিউজ টপ নিউজ

জামালপুরের মাদারগঞ্জে স্বামীর নির্যাতনের পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাবেয়া খাতুন রাফিয়া(২১) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে।

দীর্ঘ ১ মাস ২৮ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর গত মঙ্গলবার (১৮ আগস্ট) মারা যায় রাফিয়া। জামালপুর পিআইবি পুলিশ মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

রাবেয়া খাতুন রাফিয়া মাদারগঞ্জ উপজেলার আদারভিটা ইউনিয়নের ফকিরপাড়া গ্রামের মোঃ আবু বকর সিদ্দিকের মেয়ে।

গত ৩ জুলাই ২০১৭ সালে একই উপজেলার চর গোলাবাড়ি গ্রামের মোঃ আমিনুল ইসলামের সাথে বিয়ে হয় রাফিয়ার।

বিয়ের পর থেকেই রাফিয়ার স্বামী তাকে যৌতুকের জন্য নির্যাতন করতে থাকে বলে জানা গেছে। এরপর নির্যাতিতার বাবা বাদি হয়ে একটি মামলাও করেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, বিয়ের সময় কন্যার সুখের কথা ভেবে তার স্বামীকে নগদ টাকা, স্বর্ণের আংটি, স্বর্ণের গহনা, ঘরের আসবাবসহ বিভিন্ন উপঢৌকন দেয়া হয়। এরপর কন্যা রাফিয়া কিছুদিন তার সংসার ভালোভাবে চললেও আরো কিছুদিন পর থেকেই শুরু হয় যৌতুকের জন্য নির্যাতন।

‘২ লাখ টাকা যৌতুকের জন্য রাফিয়াকে নিয়মিত শারীরিক এবং মানসিক নির্যাতন করা হত। এরপর রাফিয়া যৌতুকের টাকার জন্য তার বাবার সাথে কথা বললে তার বাবা টাকা যোগার করতে না পারায় নির্যাতন আরো বাড়তে থাকে। লাগাতার নির্যাতনের একপর্যায়ে রাফিয়ার নাক মুখ থেকে রক্ত বের হতে থাকলে তার স্বামী তাকে মৃত ভেবে রাস্তায় ফেলে দিয়ে যায়।’

মামলা সূত্রে আরো জানা যায়, সেখান থেকে রাফিয়াকে এক অটোচালক উদ্ধার করে তার বাবার বাড়িতে নিয়ে যায়। তার শারীরিক অবস্থা দেখে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হলেও অবস্থার অবনতি হতে থাকে তার। পরে চিকিৎসার জন্য সরিষাবাড়ি থানা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। এরপরেও অবস্থার অবনতি হতে থাকলে রাফিয়াকে ঢাকায় নিয়ে চিকিৎসা করানোর কথা ভাবা হয় এবং ওই অবস্থাতেই তাকে থানায় নিয়ে মামলা করার প্রস্তুতি নেয়া হয়।

সুএঃ Dhaka18.com

পোস্টঃ Mohammad Redoy

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *